বিকাল ৩:৩৭ | মঙ্গলবার | ১৬ই জানুয়ারি, ২০১৮ ইং | ৩রা মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

প্রাণ আপ

pran-up-add

লালমনিরহাট-১ আসনে শক্ত অবস্থানে আওয়ামী লীগ কোন্দলে জর্জরিত বিএনপি

শাহিনুর ইসলাম প্রান্ত,
লালমনিরহাট প্রতিনিধি:
উত্তরের সীমান্তবর্তী পাটগ্রাম ও হাতীবান্ধা উপজেলা নিয়ে গঠিত লালমনিরহাট-১ সংসদীয় আসন। এ আসনে স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর আবেদ আলী এমপি হলেও পরবর্তী আসনটি আওয়ামী লীগের হাতছাড়া হয়ে যায়। কিছু সময় বিএনপি ও পরবর্তী সময়ে জাতীয় পার্টি আসনটি দখল করে নেয়। ২০০১ সালে জাতীয় পার্টির দুর্গ ভেঙে এ আসনটি আবারো আওয়ামী লীগের দখলে আনেন বর্তমান এমপি মোতাহার হোসেন। দুই উপজেলার মধ্যে পাটগ্রাম উপজেলায় আওয়ামী লীগ দুই ভাগে বিভক্ত রয়েছে। একটি অংশ নিয়ন্ত্রণ করেন এমপি মোতাহার হোসেন। অপর অংশ নিয়ন্ত্রণ করেন পাটগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বাবুল। তবে হাতীবান্ধা উপজেলায় আওয়ামী লীগে কোনো দলীয় কোন্দল নেই। এ উপজেলায় এমপি মোতাহার হোসেনের অনুসারী সবাই।

বিএনপিতে পাটগ্রাম উপজেলায় কোনো দলীয় কোন্দল নেই। ওই উপজেলা বিএনপির সবাই কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধানের অনুসারী। তবে হাতীবান্ধা বিএনপি একাধিক ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। এ উপজেলার বড় একটি গ্রুপ নিয়ন্ত্রণ করেন ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধান। অপর একটি অংশ নিয়ন্ত্রণ করেন সাবেক এমপি জয়নুল আবেদীন সরকার ও হাতীবান্ধা উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মোশারফ হোসেন। জাতীয় পার্টির দুর্গ হিসেবে পরিচিত এ আসনে এখন জাতীয় পার্টির অবস্থান নড়বড়ে। এ আসনে আগামী সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি থেকে একাধিক প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাশী। সরকারের জামায়াত নিধন মনোভাবের কারণে এবং মামলায় জর্জরিত হয়ে এ আসনে জামায়াতের নেতা কর্মীরা কোনঠাসা হয়ে পড়েছে। ফলে তাদেরকে কোনো দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিতে দেখা যায় না। যে কারণে দলটি জন বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। অনেকেই জামায়াত ত্যাগ করে অন্য দলে চলে গেছে।

লালমনিরহাট-১ (হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম) আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে সাবেক প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেন এমপি, পাটগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বাবুল ও প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা মকবুল হোসেনের নাম শোনা যাচ্ছে। তবে পরপর ৩ বার নির্বাচিত এমপি মোতাহার হোসেন মনোনয়নের দৌড়ে ও জনপ্রিয়তায় অনেকটা এগিয়ে আছেন। মোতাহার হোসেন এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর গত ১৭ বছরে পাটগ্রাম ও হাতীবান্ধা উপজেলায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। বুড়িমারী-লালমনিরহাট মহাসড়ক ও রেলপথ সংস্কার, পাটগ্রামে ধরলা নদীতে ব্রিজ নির্মাণ ও তিস্তা দ্বিতীয় সড়ক সেতু নির্মাণে তার ভূমিকা উল্লেখ করার মতো। যে কারণে এ আসনে দলের পাশাপাশি ব্যক্তি হিসেবে এমপি মোতাহার হোসেন ফ্যাক্টর। তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পাওয়ার পর একজন সফল সংগঠক হিসেবে দলীয় নেতা-কর্মীদের আস্থা অর্জনের পাশাপাশি দল-মত সবার কাছে একজন গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি হিসেবে নিজের ক্লিন ইমেজ তৈরি করেছেন।

এ আসনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধান, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি জয়নুল আবেদীন সরকার, তার ছেলে সায়েদুজ্জামান কোয়েল, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের নেতা সাজেদুল ইসলাম পাটোয়ারী উজ্জ্বল, হাতীবান্ধা বিএনপির সভাপতি মোশারফ হোসেন ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা শাহীন আকন্দর নাম শোনা যাচ্ছে। তবে জনপ্রিয়তায় অনেকটা এগিয়ে ও গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধান। তিনি লালমনিরহাট জেলার মামলায় জর্জরিত ৫ হাজার নেতা-কর্মীদের আইন সহয়তার পাশাপাশি তাদের নিয়মিত পারিবারিক খোঁজ খবর নিয়ে ক্লিন ইমেজ তৈরি করে কর্মী জনপ্রিয়তায় নিজের অবস্থান মজবুত করে নিয়েছেন। এদিকে বয়সের ভারে ন্যূব্জ জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি জয়নুল আবেদীন সরকারকে দলীয় কার্যক্রমে আগের মতো চোখে পড়ছে না। জয়নুল আবেদীন সরকারের বড় ছেলে সায়েদুজ্জামান কোয়েল ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা শাহীন আকন্দকে মাঝে মধ্যে গণসংযোগে দেখা যায়।

জাতীয় পার্টি থেকে গণসংযোগ করছেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এম জি মোস্তফা। এলজিইডি প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা, এরশাদের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মেজর (অব.) খালিদ আক্তারের নামও শোনা যাচ্ছে। তবে এ আসনে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ নিজেও প্রার্থী হতে পারেন।

লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতাহার হোসেন এমপি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সারা দেশের ন্যায় লালমনিরহাটে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আমি হাতীবান্ধা-পাটগ্রামের জনপ্রতিনিধি হিসেবে জাতীয় সংসদে যাওয়ার পর শেখ হাসিনার হাত ধরে এ জেলায় উন্নয়নের চিত্র পাল্টে দিয়েছি। মহাসড়ক ও রেলপথ সংস্কার করা হয়েছে। ধরলা নদীতে ব্রিজ নির্মাণ করা হয়েছে। তিস্তা নদীতে দ্বিতীয় সড়ক সেতু নির্মাণ করা হয়েছে। হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদ ভবন ও থানা ভবন কমপ্লেক্সে রুপান্তর করা হয়েছে। দুই উপজেলার সকল বিদ্যালয়ে অবকাঠামোগত উন্নয়ন করা হয়েছে। আগামী দিনে এ জেলার মানুষ নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আমাকে উন্নয়ন করতে সহোযোগিতা করবেন।

জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য এমজি মোস্তফা বলেন, জাতীয় পার্টি আগের চেয়ে এ জেলায় অনেক শক্তিশালী। আগামীতে আমরা আমাদের হারিয়ে যাওয়া আসনগুলো উদ্ধারে চেষ্টা করবো। লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম আসনে জাতীয় পার্টির অবস্থান অনেক শক্তিশালী।

বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধান বলেন, আগামী নির্বাচনে লালমনিরহাট জেলার মানুষ ধানের শীষে ভোট দিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়নে সহযোগিতা করবেন।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» একটি বাড়ী একটি খামার প্রকল্পের নিয়োগ পরীক্ষার প্রবেশপত্র প্রকাশিত

» আইফোন ও স্যামসাংকেও হার মানাবে হুয়াওয়ের মেট ১০!

» মাত্র ৭,৮৯০ টাকায় ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানারযুক্ত ‘ওয়াল্টনের প্রিমো এইচএম৪’

» ডিএনসিসির মনোনয়ন ফরম বিক্রি করছে আ’লীগ

» সারাদেশে শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত

» সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে ঢাবিতে বিক্ষোভ

» বাংলাদেশ দুর্নীতি দমন কমিশনে শূন্য পদে নিয়োগ

» মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের

» নতুন রূপে এলো নকিয়া সিক্সে-২০১৮ এডিশন

» তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম ও তথ্য সচিব নাসির উদ্দিন আহমেদকে বনপা’র অভিনন্দন

» দাবাং থ্রি-তে-সালমানের নায়িকা বাঙালি-মৌনী

» চলচ্চিত্রের সফলতার চেয়ে আলোচনা ছিল বেশি

» বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভা ৬ জানুয়ারি

» বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের নতুন নতুন সব উদ্ভাবন

» সৌদি প্রবাসীর কথিত স্ত্রী ও শ্বশুর-শাশুড়ি আটক

Biggapon

Biggapon

সদস্য মণ্ডলীঃ-

সম্পাদকঃ এ, বি মালেক (স্বপ্নিল)
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ লতিফুল ইসলাম
উপদেষ্টাঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন
আইটি উপদেষ্টাঃ মাহির শাহরিয়ার শিশির
আইটি সম্পাদকঃ আসাদ্দুজামান সাগর
প্রকাশক ও নির্বাহী পরিচালক (CEO):
ইঞ্জিনিয়ার এম, এ, মালেক (জীবন)

যোগাযোগঃ-

৮৬৮ কাজীপাড়া, মিরপুর-১০, মিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশ-১২১৬।
ইমেইলঃ info@dailynewsbd24.com, dailynewsbd247@gmail.com,
ওয়েবঃ www.dailynewsbd24.com
মোবাইলঃ +৮৮-০১৯৯৩৩৩৯৯৯৪-৯৯৬,
+৮৮-০১৭২১৫৬৭৭৮৯

Design & Devaloped BY Creation IT BD Limited

,

লালমনিরহাট-১ আসনে শক্ত অবস্থানে আওয়ামী লীগ কোন্দলে জর্জরিত বিএনপি

শাহিনুর ইসলাম প্রান্ত,
লালমনিরহাট প্রতিনিধি:
উত্তরের সীমান্তবর্তী পাটগ্রাম ও হাতীবান্ধা উপজেলা নিয়ে গঠিত লালমনিরহাট-১ সংসদীয় আসন। এ আসনে স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর আবেদ আলী এমপি হলেও পরবর্তী আসনটি আওয়ামী লীগের হাতছাড়া হয়ে যায়। কিছু সময় বিএনপি ও পরবর্তী সময়ে জাতীয় পার্টি আসনটি দখল করে নেয়। ২০০১ সালে জাতীয় পার্টির দুর্গ ভেঙে এ আসনটি আবারো আওয়ামী লীগের দখলে আনেন বর্তমান এমপি মোতাহার হোসেন। দুই উপজেলার মধ্যে পাটগ্রাম উপজেলায় আওয়ামী লীগ দুই ভাগে বিভক্ত রয়েছে। একটি অংশ নিয়ন্ত্রণ করেন এমপি মোতাহার হোসেন। অপর অংশ নিয়ন্ত্রণ করেন পাটগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বাবুল। তবে হাতীবান্ধা উপজেলায় আওয়ামী লীগে কোনো দলীয় কোন্দল নেই। এ উপজেলায় এমপি মোতাহার হোসেনের অনুসারী সবাই।

বিএনপিতে পাটগ্রাম উপজেলায় কোনো দলীয় কোন্দল নেই। ওই উপজেলা বিএনপির সবাই কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধানের অনুসারী। তবে হাতীবান্ধা বিএনপি একাধিক ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। এ উপজেলার বড় একটি গ্রুপ নিয়ন্ত্রণ করেন ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধান। অপর একটি অংশ নিয়ন্ত্রণ করেন সাবেক এমপি জয়নুল আবেদীন সরকার ও হাতীবান্ধা উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মোশারফ হোসেন। জাতীয় পার্টির দুর্গ হিসেবে পরিচিত এ আসনে এখন জাতীয় পার্টির অবস্থান নড়বড়ে। এ আসনে আগামী সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি থেকে একাধিক প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাশী। সরকারের জামায়াত নিধন মনোভাবের কারণে এবং মামলায় জর্জরিত হয়ে এ আসনে জামায়াতের নেতা কর্মীরা কোনঠাসা হয়ে পড়েছে। ফলে তাদেরকে কোনো দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিতে দেখা যায় না। যে কারণে দলটি জন বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। অনেকেই জামায়াত ত্যাগ করে অন্য দলে চলে গেছে।

লালমনিরহাট-১ (হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম) আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে সাবেক প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেন এমপি, পাটগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বাবুল ও প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা মকবুল হোসেনের নাম শোনা যাচ্ছে। তবে পরপর ৩ বার নির্বাচিত এমপি মোতাহার হোসেন মনোনয়নের দৌড়ে ও জনপ্রিয়তায় অনেকটা এগিয়ে আছেন। মোতাহার হোসেন এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর গত ১৭ বছরে পাটগ্রাম ও হাতীবান্ধা উপজেলায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। বুড়িমারী-লালমনিরহাট মহাসড়ক ও রেলপথ সংস্কার, পাটগ্রামে ধরলা নদীতে ব্রিজ নির্মাণ ও তিস্তা দ্বিতীয় সড়ক সেতু নির্মাণে তার ভূমিকা উল্লেখ করার মতো। যে কারণে এ আসনে দলের পাশাপাশি ব্যক্তি হিসেবে এমপি মোতাহার হোসেন ফ্যাক্টর। তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পাওয়ার পর একজন সফল সংগঠক হিসেবে দলীয় নেতা-কর্মীদের আস্থা অর্জনের পাশাপাশি দল-মত সবার কাছে একজন গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি হিসেবে নিজের ক্লিন ইমেজ তৈরি করেছেন।

এ আসনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধান, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি জয়নুল আবেদীন সরকার, তার ছেলে সায়েদুজ্জামান কোয়েল, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের নেতা সাজেদুল ইসলাম পাটোয়ারী উজ্জ্বল, হাতীবান্ধা বিএনপির সভাপতি মোশারফ হোসেন ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা শাহীন আকন্দর নাম শোনা যাচ্ছে। তবে জনপ্রিয়তায় অনেকটা এগিয়ে ও গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধান। তিনি লালমনিরহাট জেলার মামলায় জর্জরিত ৫ হাজার নেতা-কর্মীদের আইন সহয়তার পাশাপাশি তাদের নিয়মিত পারিবারিক খোঁজ খবর নিয়ে ক্লিন ইমেজ তৈরি করে কর্মী জনপ্রিয়তায় নিজের অবস্থান মজবুত করে নিয়েছেন। এদিকে বয়সের ভারে ন্যূব্জ জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি জয়নুল আবেদীন সরকারকে দলীয় কার্যক্রমে আগের মতো চোখে পড়ছে না। জয়নুল আবেদীন সরকারের বড় ছেলে সায়েদুজ্জামান কোয়েল ও কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা শাহীন আকন্দকে মাঝে মধ্যে গণসংযোগে দেখা যায়।

জাতীয় পার্টি থেকে গণসংযোগ করছেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এম জি মোস্তফা। এলজিইডি প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা, এরশাদের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মেজর (অব.) খালিদ আক্তারের নামও শোনা যাচ্ছে। তবে এ আসনে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদ নিজেও প্রার্থী হতে পারেন।

লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতাহার হোসেন এমপি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সারা দেশের ন্যায় লালমনিরহাটে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আমি হাতীবান্ধা-পাটগ্রামের জনপ্রতিনিধি হিসেবে জাতীয় সংসদে যাওয়ার পর শেখ হাসিনার হাত ধরে এ জেলায় উন্নয়নের চিত্র পাল্টে দিয়েছি। মহাসড়ক ও রেলপথ সংস্কার করা হয়েছে। ধরলা নদীতে ব্রিজ নির্মাণ করা হয়েছে। তিস্তা নদীতে দ্বিতীয় সড়ক সেতু নির্মাণ করা হয়েছে। হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদ ভবন ও থানা ভবন কমপ্লেক্সে রুপান্তর করা হয়েছে। দুই উপজেলার সকল বিদ্যালয়ে অবকাঠামোগত উন্নয়ন করা হয়েছে। আগামী দিনে এ জেলার মানুষ নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আমাকে উন্নয়ন করতে সহোযোগিতা করবেন।

জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য এমজি মোস্তফা বলেন, জাতীয় পার্টি আগের চেয়ে এ জেলায় অনেক শক্তিশালী। আগামীতে আমরা আমাদের হারিয়ে যাওয়া আসনগুলো উদ্ধারে চেষ্টা করবো। লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম আসনে জাতীয় পার্টির অবস্থান অনেক শক্তিশালী।

বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার হাসান রাজীব প্রধান বলেন, আগামী নির্বাচনে লালমনিরহাট জেলার মানুষ ধানের শীষে ভোট দিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়নে সহযোগিতা করবেন।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সদস্য মণ্ডলীঃ-

সম্পাদকঃ এ, বি মালেক (স্বপ্নিল)
সহঃ সম্পাদকঃ মোঃ লতিফুল ইসলাম
উপদেষ্টাঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন
আইটি উপদেষ্টাঃ মাহির শাহরিয়ার শিশির
আইটি সম্পাদকঃ আসাদ্দুজামান সাগর
প্রকাশক ও নির্বাহী পরিচালক (CEO):
ইঞ্জিনিয়ার এম, এ, মালেক (জীবন)

যোগাযোগঃ-

৮৬৮ কাজীপাড়া, মিরপুর-১০, মিরপুর, ঢাকা, বাংলাদেশ-১২১৬।
ইমেইলঃ info@dailynewsbd24.com, dailynewsbd247@gmail.com,
ওয়েবঃ www.dailynewsbd24.com
মোবাইলঃ +৮৮-০১৯৯৩৩৩৯৯৯৪-৯৯৬,
+৮৮-০১৭২১৫৬৭৭৮৯

Design & Devaloped BY Creation IT BD Limited